কেরানীগঞ্জের কাজীরগাঁওয়ে হিন্দুদের ধর্মীয় অনুষ্ঠানে হামলা

15

সংবাদদাতা।। ঢাকার অদূরবর্তী কেরানীগঞ্জের কাজীরগাঁওয়ে নামযজ্ঞ ও বৈষ্ণব মহোৎসব চলাকালে একদল সশস্ত্র দুর্বৃত্তের অতর্কিত হামলায় অনুষ্ঠান শুধু লন্ডভন্ড হয়নি এতে প্রায় ৮ জন ভক্ত গুরুতররূপে আহত হয়েছে, মহিলাদের শ্লীলতাহানি করা হয়েছে, অনেকের হাতের শাঁখা জোর করে ভেঙে ফেলা হয়েছে। আহতদের মধ্যে কোকিল ম-ল ও সঞ্জয় ম-লকে চিকিৎসার জন্যে দ্রুত ঢাকার মিটফোর্ড হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। হত্যার উদ্দেশ্যে কোকিল ম-লের মাথায় ধারালো চাপাতি দিয়ে এবং সঞ্জয় ম-লের বাম হাতের পাতায় কোপ মেরে গুরুতর রক্তাক্ত জখম করা হয়। গত ১ ডিসেম্বর আনুমানিক বেলা ২ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার সাথে একই গ্রামের অলি, মকবুল, হাছান এবং কুমলিভিটা গ্রামের কুদ্দুস, সানিসহ অজ্ঞাতনামা ৩০/৪০ জন জড়িত ছিল। বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে একথা জানানো হয়।

ঘটনার পরদিন এ অভিযোগে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় মামলা রুজু করা হয়। এ ঘটনায় একজন আসামী গ্রেফতার হয়ে কারাগারে আটক আছে।

বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের দু’সদস্যবিশিষ্ট এক প্রতিনিধিদল বৃহস্পতিবার (০৭ ডিসেম্বর) বিকেলে অকুস্থল পরিদর্শন করেন এবং আহতদের খোঁজ খবর নেন। প্রতিনিধিদলে ছিলেন- পরিষদের সভাপতিম-লীর সদস্য কাজল দেবনাথ ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মনীন্দ্র কুমার নাথ। স্থানীয় ঐক্য পরিষদের সভাপতি মদন মোহন সরকার প্রতিনিধিদলের সঙ্গে ছিলেন।

ঐক্য পরিষদের নেতারা অকুস্থল সফর করে এসে এক বিবৃতিতে বলেন, সারাদেশ জুড়ে হিন্দু সম্প্রদায়ের নামযজ্ঞ অনুষ্ঠান ও উৎসব প্রতিবছরের মত এবারও শুরু হয়েছে এবং আগামি মার্চ মাস পর্যন্ত তা অব্যাহত থাকার কথা রয়েছে। দ্বাদশ জাতীয় সাধারণ নির্বাচনকে সামনে রেখে সাম্প্রদায়িক মহলবিশেষের দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরীর নীল নকশার অংশ হিসেবে এসব ধর্মীয় উৎসবে আক্রমণ পরিচালনার আশঙ্কা বিদ্যমান। এ ব্যাপারে নির্বাচন কমিশন ও সরকারের আশু দৃষ্টি তারা কামনা করেছেন।