ঐক্য পরিষদের মহাসমাবেশ ৪ নভেম্বরের পরিবর্তে ১৭ নভেম্বর

19

সংবাদদাতা।। বিদ্যমান জাতীয় রাজনীতির সংঘাতপূর্ণ পরিস্থিতিকে বিবেচনায় নিয়ে বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ এর নেতৃত্বাধীন ধর্মীয়জাতিগত সংখ্যালঘু ঐক্যমোর্চার নভেম্বরে ঘোষিত ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে মহাসমাবেশের তারিখ ১৭ নভেম্বর পুনঃনির্ধারণের ঘোষণা দেয়া হয়েছে বুধবার ( নভেম্বর) সকালে ঢাকার রিপোর্টার্স ইউনিটির নসরুল হামিদ মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে ঘোষণা দেয়া হয় 

ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ঐক্য মোর্চার প্রধান সমন্বয়ক এ্যাড. রানা দাশগুপ্ত বলেন, গত ২২ ২৩ সেপ্টেম্বর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ৪৮ ঘণ্টাব্যাপী গণঅনশন গণঅবস্থান চলাকালীন আওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির প্রধান সমন্বয়ক, সাবেক মন্ত্রী পরিষদ সচিব কবির বিন আনোয়ার সরকারের উচ্চ পর্যায়ের বরাত দিয়ে আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইশতেহারে প্রতিশ্রুত জাতীয় সংখ্যালঘু কমিশন চলতি অক্টোবর মাসে গঠনের যে ঘোষণা দিয়েছিলেন তা আজ পর্যন্ত ঘোষিত না হওয়ায় গভীর দুঃখ হতাশা ব্যক্ত করেন তিনি জাতীয় সংসদের চলতি শেষ অধিবেশনে জাতীয় সংখ্যালঘু কমিশন বিল উত্থাপন তা পাশ করার জন্য সরকার এবং সংসদ সদস্যদের প্রতি আহ্বান জানান

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বিদ্যমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে দেশের ধর্মীয় জাতিগত সংখ্যালঘু সম্প্রদায় নিদারুণভাবে উদ্বিগ্ন বলে উল্লেখ করা হয় এবং এহেন রাজনৈতিক সহিংসতার সুযোগ নিয়ে দেশের পরিস্থিতিকে অধিকতর অস্থিতিশীল করার জন্যে যাতে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়কে লক্ষ্য করে কোনো ধরণের সহিংসতা চালানোর অপপ্রয়াস মহলবিশেষ করতে না পারে তজ্জন্যে সচেতন ভূমিকা পালনের জন্যে সরকার, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, সকল রাজনৈতিক দল নাগরিক সমাজের প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানানো হয়

সংবাদ সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন, ঐক্য পরিষদের সভাপতি . নিমচন্দ্র ভৌমিক বক্তব্য রাখেন রঞ্জন কর্মকার (ঐক্য পরিষদ), মনীন্দ্র কুমার নাথ (পূজা উদযাপন পরিষদ), সাংবাদিক মনোজ রায় (জগন্নাথ হল এ্যালামনাই এ্যাসোসিয়েশন), ডা. এম কে রায় (জাতীয় হিন্দু মহাজোট) প্রমুখ সংবাদ সম্মেলন পরিচালনা করেন উত্তম কুমার চক্রবর্তী

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন রবীন্দ্র নাথ বসু মিহির রঞ্জন হাওলাদার (ঐক্য পরিষদ), রতন পাল (শারদাঞ্জলি ফোরাম)