শেখ হাসিনাই ফের প্রধানমন্ত্রী, নিরঙ্কুশ জয় পাচ্ছে আওয়ামী লীগ

4

ডেস্ক রিপোর্ট।। বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনা টানা চতুর্থ দফায় এবং বাংলাদেশের ইতিহাসে পঞ্চম বারের মতো প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নিচ্ছেন এটা শতভাগ নিশ্চিত রাত দশটা পর্যন্ত পাওয়া খবরে এও নিশ্চিত বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক আন্দোলন মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্ব দেওয়া বঙ্গবন্ধুর আওয়ামী লীগ ২৯৯ আসনের মধ্যে নিরঙ্কুশ জয় পেতে চলেছে রোববার (০৭ জানুয়ারি) দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনে ভোট গ্রহণ শেষ হয় বিকেল চারটায়, তারপরই গণনা শুরু হয় প্রাথমিক ফলাফলে এই চিত্রই উঠে এসেছে মাঝ রাতের আগেই পুরো চিত্র উঠে আসবে 

নির্বাচন রুখে দেয়ার চেষ্টা ছিল প্রধান বিরোধী শক্তি বিএনপি তাদের সহযোগী একাত্তরের যুদ্ধাপরাধী জামায়াতে ইসলামির সঙ্গে নির্বাচন বর্জনকারী আরও কয়েকটি দল কিন্তু তাদের চেষ্টা সফল হয়নি মোটামুটি উৎসবের আমেজেই ভোট হয়েছে তবে ভোট কিছুটা কম পড়েছে অবশ্য বিএনপি নেতা আবদুল মঈন খান দাবি করেছেন, ভোট বর্জনের আহ্বানে সাড়া দিয়ে জনগণ ভোট বর্জন করেছেন এমনকি আওয়ামী লীগ সমর্থকদের অনেকে ভোট কেন্দ্রে যানান এটা দেশের মানুষ দেখেছে, বিশ্বের মানুষও দেখেছে 

প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী হাবিবুল আউয়াল ভোট শেষ হওয়ার পর জানিয়েছেন, মোটামুটি গড়ে ৪০ শতাংশের মতো ভোট পড়েছে গণমাধ্যম বলছে, ভোটের হার বাড়তো, বিরোধীদের সহিংসতার কারণে মানুষ দ্বিধান্বিত ছিল, ভয়ও পেয়েছে কিছুটা আওয়ামী লীগ চেষ্টা করেছে ভোটের হার বাড়াতে, যাতে গ্রহণযোগ্যতা নিয়ে কোনো প্রশ্ন না ওঠে তবুও সহিংসতার মুখে এই হার অবশ্যই ইতিবাচক 

নির্বাচনের ফল ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে একটা প্রশ্ন উঠে আসছে, জাতীয় পার্টি একাদশ জাতীয় সংসদে সংসদে আওয়ামী লীগের সঙ্গে সমঝোতায় বিরোধী দল ছিল ২০১৪ ২০১৮ সালেও এই সমঝোতা ছিল এই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ পূর্বের সমঝোতার পথ ধরে মোট ২৬ আসন তাদের ছেড়ে দিলেও অনেকে হেরে যাচ্ছেন আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র হিসেবে দাঁড়ানো প্রার্থীদের কাছে এই অবস্থায় জাতীয় পার্টির অবস্থান কী দাঁড়াবে ! অবশ্য চূড়ান্ত ফল ঘোষিত হওয়ার আগে চিত্রটি পরিস্কার হচ্ছে না অনেক আসনেই হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হচ্ছে 

দ্বাদশ সংসদ নির্বাচন ছিল বর্তমান নির্বাচন কমিশনের জন্য এক বিরাট পরীক্ষা, কারণ বাংলাদেশের  নির্বাচন নিয়ে দেশেবিদেশে ব্যাপক আলোচনা রয়েছে নির্বাচন কমিশনেরও চেষ্টা ছিল দলীয় সরকারের অধীনে একটি সুষ্ঠু নিরপেক্ষ নির্বাচন করার প্রধান নির্বাচন কমিশনার এক প্রশ্নের জবাবে বলেছেন, এখনই শেষ কথা বলার সময় আসেনি তবে এই প্রথম বাংলাদেশের ইতিহাসে নির্বাচন চলাকালে শাসক দলের এক প্রার্থীর প্রার্থিতা বাতিল করা হলো তিনি বর্তমান সংসদের সদস্য, চট্টগ্রামের ১৬ আসনের মোস্তাফিজুর রহমান চৌধুরী আচরণ বিধি ভঙ্গ এবং আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের সঙ্গে দুর্ব্যবহারের কারণে নির্বাচন কমিশন এই পদক্ষেপ নিয়েছে