শীতে করোনার প্রকোপ বাড়তে পারে, প্রধানমন্ত্রীর আশঙ্কা

4

।। নিজস্ব বার্তা পরিবেশক।। শীতে করোনার প্রকোপ আরেকটু বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এজন্য এখন থেকেই প্রস্তুতি নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। আজ রোববার (২০ সেপ্টেম্বর) সকালে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ ও কল্যাণ তহবিলে কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের অনুদান প্রদান অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে তিনি এ আহ্বান জানান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সবাই আন্তরিক হয়ে কাজ করায় করোনা মোকাবিলা সম্ভব হয়েছে। তবে আসছে শীতে পরিস্থিতি খারাপ হতে পারে। তাই মোকাবিলায় এখন থেকেই নিতে হবে প্রস্তুতি। তিনি আরো বলেন, জনগণের কল্যাণই তার লক্ষ্য। মহামারির মাঝে ব্যবসা-বাণিজ্য সচল রাখতে দেয়া হয়েছে প্রণোদনা।

এদিকে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় (আজ রোববার সকাল ৮টা পর্যন্ত) আরও এক হাজার ৫৪৪ জন করোনাভাইরাসে সংক্রমিত শনাক্ত হয়েছেন। এ সময়ে মারা গেছেন ২৬ জন। আজ রোববার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এক বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়। এ নিয়ে দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৩ লাখ ৪৮ হাজার ৯১৬ জন। মোট মৃত্যু দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ৯৩৯। সুস্থ  হয়েছেন ২ লাখ ৫৬ হাজার ৫৬৫ জন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় ১১ হাজার ৫৯১ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। পরীক্ষার সংখ্যা বিবেচনায় রোগী শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৩২ শতাংশ। টানা ১২ দিন পর পরীক্ষার বিবেচনায় রোগী শনাক্তের হার ১৩ শতাংশের ওপরে উঠলো। এর আগে ৭ সেপ্টেম্বর রোগী শনাক্তের হার এর চেয়ে বেশি, ১৪ দশমিক ২৯ শতাংশ ছিল।

তবে আগের দিনের তুলনায় গতকাল পরীক্ষা কম হয়েছে। এতে নতুন রোগী শনাক্তের সংখ্যাও সামান্য কমেছে। কিন্তু বেড়েছে রোগী শনাক্তের হার। গতকাল রোগী শনাক্তের হার ছিল ১১ দশমিক ৯০ শতাংশ। অবশ্য গতকালের তুলনায় আজ করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা কমেছে। গতকাল ৩২ জনের মৃত্যুর তথ্য জানানো হয়েছিল।

গত ৮ মার্চ দেশে করোনাভাইরাসে প্রথম শনাক্তের খবর জানানো হয়। এর ১০ দিনের মাথায় ১৮ মার্চ করোনায় দেশে প্রথম মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করে সরকার। এখন দেশে সংক্রমণের সপ্তম মাস চলছে। শুরুর দিকে সংক্রমণ ধীর থাকলেও মে মাসের মাঝামাঝি থেকে পরিস্থিতি খারাপ হতে শুরু করে। জুনে তা তীব্র আকার নেয়। জুলাইয়ের শুরু থেকে নতুন রোগী শনাক্তের সংখ্যা কমতে থাকে। এ সময় পরীক্ষাও কম হয়। অবশ্য গত আগস্ট থেকে নতুন রোগী শনাক্তের সংখ্যার পাশাপাশি পরীক্ষার তুলনায় সংক্রমণ শনাক্তের হারও কমতে দেখা গেছে।