বিভিন্নস্থানে গণঅবস্থান কর্মসূচি পালিত

18

বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের গণঅবস্থান ও বিক্ষোভ সমাবেশ কর্মসূচি সারাদেশে পালিত হয়েছে। যেসব জেলা থেকে আমরা খবর পেয়েছি তা এখানে দেওয়া হলো।

রাঙামাটি

রাঙামাটি প্রতিনিধি।। ‘সাম্প্রদায়িকতা রুখো, বীর বাঙালি জাগো’ এই স্লোগান নিয়ে বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ রাঙামাটি জেলা শাখার ব্যানারে গণঅবস্থান ও বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ৭ নভেম্বর শনিবার সকালে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে ২ঘন্টাব্যাপি এই কর্মসূচি পালিত হয়।

গণঅবস্থান ও বিক্ষোভ সমাবেশ কর্মসূচিতে সভাপতিত্ব করেন রাঙামাটি জেলা ঐক্য পরিষদ  সভাপতি দীপেন ঘোষ। বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক পলাশ কুসুম চাকমা, সাংগঠনিক সম্পাদক সমীরণ বড়–য়া, রাঙামাটি পুরোহিত কল্যাণ সমিতির সহ-সভাপতি রণধীর চক্রবর্তী, রাঙামাটি গীতা সমন্বয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক সোহেল সাহা প্রমুখ।

রাজবাড়ি

রাজবাড়ি প্রতিনিধি।। রাজবাড়ি জেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের গণ অবস্থান কর্মসূচি পালিত হয় প্রেসক্লাবের সামনের সড়কে । ঐক্য পরিষদ ও অঙ্গ সংগঠনসমূহের নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।

দিনাজপুর

দিনাজপুর প্রতিনিধি।।  ‘ধর্ম যার যার, রাষ্ট্র সবার’- এই শ্লোগান সামনে রেখে ৭ নভেম্বর শনিবার দিনাজপুর প্রেসক্লাবের সামনের সড়কে কেন্দ্রীয় কমিটি ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে গণঅবস্থান পালিত হয়। দিনাজপুর কেন্দ্রীয় শ্মশানে ভূমিদস্যু কর্তৃক দূর্গা পূজা মন্দিরের টিন চুরি, লালমনিরহাট, পার্বতীপুর, কুমিল্লার মুরাদপুর ও দেশের বিভিন্ন এলাকায় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের উপর আক্রমণ, অগ্নিসংযোগ, নারী নির্যাতন, ছাত্রদের ছাত্রত্ব বাতিল, অধ্যাপক কুশল চক্রবর্তীকে হত্যার হুমকি,  ধর্মপ্রাণ শহিদুন্নবীকে পিটিয়ে, পুড়িয়ে হত্যা, সভা ও সমাবেশে ভিন্ন ধর্মের প্রতি অব্যাহত কটুক্তির প্রতিবাদে ও সংখ্যালঘু সুরক্ষা আইন, সংখ্যালঘু কমিশন, সংখ্যালঘু মন্ত্রণালয় গঠনের দাবিতে গণঅবস্থানের পর বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ দিনাজপুর জেলা শাখার সভাপতি সুনীল চক্রবর্তী বলেন, সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের উপর নির্যাতন অত্যাচারে আমাদের পিঠ দেওয়ালে ঠেকে গেছে। আমরা এদেশের নাগরিক। আমরা কাউকে আর ছাড় দেবো না। আরও বক্তব্য রাখেন, দিনাজপুর পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি স্বরূপ বক্শী বাচ্চু, সাধারণ সম্পাদক উত্তম কুমার রায়, দিনাজপুর হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রতন সিং, কেন্দ্রীয় শ্মশান কমিটির সাধারণ সম্পাদক গৌর চন্দ্র শীল, পৌর কমিটির সভাপতি বিনোদ চন্দ্র সরকার, সম্পাদক রাজু দাস, কোষাধ্যক্ষ রঞ্জন সরকার, বিমল রায়, সঞ্জীব রায়, কমল দত্ত, নারায়ন চন্দ্র রায়, ডাঃ নবীন চন্দ্র রায়, মহিলা ঐক্য জোটের সভাপতি মিনতি দাস,  মল্লিকা রানী দাস, কাশী কুমার দাস ও রাজু বিশ্বাসসহ দিনাজপুর জেলার ১৩ উপজেলার দুই সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। বিক্ষোভ মিছিলটি দিনাজপুর শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে প্রেসক্লাবে এসে সমাপ্ত হয়।

মৌলভীবাজার

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি।। কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে সারা দেশের মত গণঅবস্থান ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ, মৌলভীবাজার জেলা শাখা। ৭ নভেম্বর শনিবার, সকাল দশটায় শহরের চৌমুহনা পয়েন্টে অবস্থান কর্মসূচি পালিত হয়, এর পর বিক্ষোভ মিছিল চৌমুহনা পয়েন্ট থেকে শুরু করে শহরের সেন্ট্রাল রোড হয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের কার্যালয়ের সামনে থেকে ঘুরে শ্রী শ্রী কালী মন্দির প্রাঙ্গনে এসে শেষ হয়। গণঅবস্থান ও বিক্ষোভ সমাবেশ উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ, মৌলভীবাজার সদর উপজেলা শাখা, পৌর শাখা,  যুব ঐক্য পরিষদ, ছাত্র ঐক্য পরিষদ,  বাংলাদেশ পুজা উদযাপন পরিষদ, মৌলভীবাজার জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ।

শেরপুর 

শেরপুর প্রতিনিধি।। ঐক্য পরিষদের কেন্দ্রিয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে শেরপুরে হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ গণঅবস্থান বিক্ষোভ মিছিল করেছে। ৭ নভেম্বর শনিবার সকালে  জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের প্রধান ফটকে ঘন্টাব্যাপি বিক্ষোভে বিপুল সংখ্যক নারী- পুরুষ অংশ নেন। বিক্ষোভ শেষে ভবতারা কালীমন্দির প্রাঙ্গণে অবস্থান কর্মসূচি পালিত হয়।  জেলা ঐক্য পরিষদের সভাপতি দেবাশীষ ভট্টাচার্যের সভাপতিত্বে ও প্রভাষক মলয় চাকীর সঞ্চালন্য়া বিক্ষোভ ও অবস্থান কর্মসূচিতে  বক্তব্য রাখেন জেলা বার ও প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম আধার, ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক কানু চন্দ্র চন্দ,  বীর মুক্তিযোদ্ধা বাদল চন্দ্র দে,  জনউদ্যোগ আহবায়ক শিক্ষাবিদ আবুল কালাম আজাদ, জেলা কমিউনিস্ট পার্টির সভাপতি আবু আহমেদ বাবুল, সদর উপজেলা কমিউনিস্ট পার্টির সভাপতি সোলায়মান আহমেদ, আইইডি’র সমন্বয়কারী মানিক পাল, আইইডি’র ফেলো সুমন্ত বর্মণ, শেরপুর  ডিস্ট্রিক্ট ডিবেট ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ইমতিয়াজ চৌধুরী শৈবাল, ঝিনাইগাতী ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শিক্ষক জীবন চক্রবর্তী, জেলা পুরোহিত কল্যাণ পরিষদের সভাপতি কবি কমল চক্রবর্তী, সাবেক সভাপতি শিক্ষক বিপুল চক্রবর্তী, সদর উপজেলা ট্রাইবাল সভাপতি ডেনিশন দুলাল মারাক, সাধারণ সম্পাদক মিন্টু বিশ্বাস, আদিবাসী নেতা মলিন বিশ্বাস, খ্রিস্টান অ্যাসোসিয়েসশনের  সাধারণ সম্পাদক সুদর্শণ মারাক,  শহর ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ইন্দ্রজিৎ চাকী,  যুব ঐক্যের জেলা আহবায়ক শান্ত রায়, সদস্য সচিব ইন্দ্রজিত বর্মণ, রবিদাস সম্প্রদায়ের সভাপতি  মিলন মেম্বার,  হরিজন নেত্রী মুক্তা হরিজন  প্রমুখ।

কুমিল্লা

কুমিল্লা প্রতিনিধি।। কুমিল্লায় গণঅবস্থান ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ  ঐক্য পরিষদ ও বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ কুমিল্লা জেলা ও মহানগর শাখাসহ বিভিন্ন সংগঠন। এতে বক্তব্য রাখেন- বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদ কুমিল্লা জেলা শাখার সভাপতি চন্দন কুমার রায় ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ তাপস কুমার বকসী, বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ কুমিল্লা জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক  ট্রাস্টি নির্মল পালসহ বিভিন্ন সংগঠনের অর্ধশতাধিক নেতা-কর্মী। বক্তারা বলেন, আমরা সবাই কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে একাত্তর সালে যুদ্ধ করে এ দেশকে স্বাধীন করেছি। এই দেশে কোন সাম্প্রদায়িকতার স্থান নেই।  একটি অসাম্প্রদায়িক উন্নত রাষ্ট্র বিনির্মাণে সংখ্যালঘুদের অধিকার নিশ্চিত করার আহবান জানিয়েছেন তারা।