পঙ্কজ ভট্টাচার্যকে আজীবন সম্মাননা

8

ডেস্ক রিপোর্ট।। বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ ও ঐক্য ন্যাপের সভাপতি পঙ্কজ ভট্টাচার্যকে আজীবন সম্মাননা জানিয়েছে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ইনস্টিটিউট ফর এনভায়রনমেন্ট অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (আইইডি)। ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী বা জনজাতিবিষয়ক অধিকার আদায়ের লড়াইকে এগিয়ে নিতে অসামান্য অবদান রাখায় পঙ্কজ ভট্টাচার্যকে এ সম্মাননা জানানো হয়।

বৃহস্পতিবার (২৪ জুন) সকালে রাজধানীর মোহাম্মদপুরের বাবর রোডের ফোক সেন্টারে জনজাতিবিষয়ক সাংবাদিক সম্মাননা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। পঙ্কজ ভট্টাচার্য ছাড়াও সাত সাংবাদিক ও তিন কলাম লেখককে সম্মাননা জানানো হয় অনুষ্ঠানে।

অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে আইইডির নির্বাহী পরিচালক নুমান আহম্মেদ খান বলেন, অসাম্প্রদায়িক, বৈষম্যহীন সমাজ গড়তে আজীবন লড়ে যাচ্ছেন পঙ্কজ ভট্টাচার্য। কেন্দ্রে কিংবা গ্রামে যেখানেই অত্যাচার, বৈষম্য, নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে, সেখানেই ছুটে গেছেন। মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন।

অনুষ্ঠানে নিজের বাসা থেকে অনলাইনে যুক্ত হন পঙ্কজ ভট্টাচার্য। পঙ্কজ ভট্টাচার্যের বাসায় গিয়ে তাঁর হাতে সম্মাননাপত্র তুলে দেন এবং উত্তরীয় পরিয়ে দেন নুমান আহম্মেদ। পঙ্কজ ভট্টাচার্যের বর্ণাঢ্য জীবন নিয়ে লেখা সম্মাননাপত্র পড়ে শোনান আইইডির হরেন্দ্রনাথ সিং।

পঙ্কজ ভট্টাচার্য বলেন, মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে যে বাংলাদেশ অর্জন করেছিলাম, সেটি পেছনের দিকে হাঁটছে। বাংলাদেশকে সামনে নিয়ে যাওয়া কঠিন চ্যালেঞ্জ। ২৩-২৪ বছরেও পার্বত্য শান্তিচুক্তির দুই-তৃতীয়াংশই বাস্তবায়িত হয়নি। এটি দুঃখজনক।

সমতল ও পাহাড়ের ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর জনগণের সমস্যার প্রকৃত সমাধান এখনো হয়নি বলে মন্তব্য করেন পঙ্কজ ভট্টাচার্য। তিনি বলেন, সমতলের ক্ষুদ্র জাতিসত্তার অধিবাসীদের পৃথক ভূমি কমিশনের দাবি পূরণ হয়নি। আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইশতেহারে পৃথক ভূমি কমিশনের প্রতিশ্রুতি দেওয়া হলেও তা পূরণ করা হয়নি। পার্বত্য শান্তিচুক্তি বাস্তবায়ন ও পৃথক ভূমি কমিশনের দাবি অবিলম্বে পূরণ করতে হবে।

জনজাতিবিষয়ক প্রতিবেদনের ভিত্তিতে প্রথম হয়েছেন ঢাকা ট্রিবিউনের আহমেদ শারজিন শরীফ, দ্বিতীয় দৈনিক ইত্তেফাকের রাবেয়া বেগম এবং তৃতীয় দৈনিক মানবকণ্ঠের আরিফুল ইসলাম। বাকি তিনজনকে বিশেষ সম্মাননা দেওয়া হয়। জনজাতি বিষয়ে পত্রিকায় কলাম লিখে সম্মাননা পান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক জোবাইদা নাসরিন এবং পল্লব চাকমা ও ত্রিমিতি চাকমা।

জোবাইদা নাসরিন বলেন, করোনা নিয়ে দেশে অনেক পরিকল্পনা হলেও সেগুলোতে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর জনগণ বাদ গেছে। যারা রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্বে, বিষয়টি তাদের নজরে আনার চেষ্টা করা হয়েছে। করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধে কেউ যেন পিছিয়ে না থাকে।

আইইডির সহযোগী সমন্বয়কারী তারিক হোসেনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন চ্যানেল ২৪-এর নির্বাহী পরিচালক তালাত মামুন, আইইডির সমন্বয়ক জ্যোতি চট্টোপাধ্যায়, প্রবীণ বিশেষজ্ঞ হাসান আলী প্রমুখ।