নাবালিকা অপহরণ, ধর্মান্তর ও জোরপূর্বক বিয়ে, আসামিরা এখনো ধরা ছোঁয়ার বাইরে

12

॥ সিরাজগঞ্জ থেকে সংবাদদাতা ॥ চৈতি বিশ^াস বয়স ১৭। নাবালিকা চৈতি অপহরণের শিকার হয়েছে গত ৮ ডিসেম্বর তার দাদুর বাড়ি সিরাজগঞ্জ এনায়েতপুর থানার মাঝগ্রামে। এ অপহরণের ঘটনার সাথে জড়িত মোহাম্মদ হযরত আলী, মকদম আলী ও হালিমা বেগম। যতদূর জানা গেছে, দুর্বৃত্তের দল অপহরণের পর নাবালিকা মেয়েটির  ভুয়া জন্মসনদ তৈরি করে তাকে জোরপূর্বক ধর্মান্তরিত করে নাম রেখেছে খাদিজা খাতুন। দলনেতা মোহাম্মদ হযরত আলী তাকে বেআইনিভাবে বিয়েও করেছে। অত্যন্ত মেধাবী এ কন্যাকে হারিয়ে তার অসহায় মা-বাবা ও পরিবার দিশেহারা হয়ে পড়েছে।

এ ঘটনা নিয়ে আসামিদের বিরুদ্ধে গত ১৭ ডিসেম্বর নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে ৭ ও ৩০ ধারায় মামলা হলেও আজ পর্যন্ত নাবালিকা চৈতিকে পুলিশ দুর্বৃত্তদলের হাত থেকে উদ্ধার করেনি, এদের কাউকেই গ্রেফতার করেনি।