দিনাজপুর বিরল উপজেলার বহলা ট্রাজেডী দিবসে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন 

12

রতন সিং দিনাজপুর থেকে।। ১৩ ডিসেম্বর।।  দিনাজপুর বিরল উপজেলার বহলা ট্রাজেডী দিবস বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে উদযাপন উপলক্ষে স্থানীয় বীরমুক্তিযোদ্ধাদের আয়োজনে দিবসটি তাৎপর্য তুলে ধরে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে রাখেন নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহ্মুদ চৌধুরী এমপি

আজ বুধবার দুপুর ১২টায় দিনাজপুর বিরল উপজেলার ৭নং বিজোড়া ইউপি বহলা বধ্যভূমিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহ্মুদ চৌধুরী এমপি এর পর স্থানীয় বীরমুক্তিযোদ্ধা শহীদ পরিবারের সদস্যরা এবং স্থানীয় উপজেলা আওয়ামী লীগসহ স্বাধীনতার পক্ষে সকল সংগঠন শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে বিরল উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের আয়োজনে এক স্মরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহ্মুদ চৌধুরী এমপি

তিনি বলেন, এই দেশ মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে এক অনন্য ইতিহাস তৈরী করেছিলো সেই ইতিহাস শরিক ছিল আমাদের মিত্র দেশ ভারত মুক্তিযুদ্ধের আত্মদানের ইতিহাস ভূলে গেলে আমরা পথভ্রষ্ট হয়ে যাবো মুক্তিযুদ্ধ হচ্ছে আমাদের প্রেরণা, শক্তি চলার পথ মুক্তিযুদ্ধই হচ্ছে আমাদের সঠিক গন্তব্যে যাওয়ার অনুপ্রেরণা সেই সঠিক পথে নিয়ে গিয়েছিলেন আমাদের মহান নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান তারই রক্তের উত্তরাধিকার জননেত্রী দেশরতœ শেখ হাসিনা দেশকে উন্নয়ন, আত্ম মর্যাদা এবং সম্মানের জায়গায় নিয়ে গেছেন দেশ পৃথিবীতে উন্নয়নের রোল মডেল হয়ে গেছে পৃথিবীর রাষ্ট্র সরকার প্রধানেরা বাংলাদেশের ভূয়সী প্রশংসা করেন আমেরিকার প্রেসিডেন্ট একদিকে স্যাংশন দেয় অন্যদিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সেলফি তুলে এটাই হচ্ছে আমাদের মুক্তিযুদ্ধ আমাদের স্বাধীনতার সুখ আমরা যখন দেখি ফ্রান্সের মত একটি শক্তিধর রাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি আমাদের প্রধানমন্ত্রীর সামনে শ্রদ্ধায় নুয়ে পড়ছে, তখন ৩০ লক্ষ শহীদের রক্ত ফিনকি দিয়ে উঠে আমরা যখন দেখি মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্টে প্রতিনিয়ত বাংলাদেশ সম্পর্কে ব্রিফিং হচ্ছে যখন দেখি জাতিসংঘ প্রতিনিয়ত বাংলাদেশ সম্পর্কে তাদের মন্তব্য দিচ্ছে, তখন আমাদের গর্বে বুক ভরে যায় 

দিনাজপুর বিরল উপজেলার বিজোড়া ইউপি চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার রহম আলী, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পৌর মেয়র আলহাজ্ব সবুজার সিদ্দিক সাগর, সাধারণ সম্পাদক রমাকান্ত রায়, সহসভাপতি আব্দুস সবুর, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোশারফ হোসেন, এ্যাড, রবিউল ইসলাম রবি, সাংগঠনিক সম্পাদক শফিকুল আজাদ মনি, বিভূতি ভূষণ সরকার প্রমুখ  

উল্লেখ্য যে, ১৯৭১এর ১৩ ডিসেম্বর সন্ধ্যার সময় দিনাজপুর বিরল উপজেলার বহলা গ্রাম ঘিরে ফেলে পাকহানাদার বাহিনীর সদস্য তাদের দোসররা তারা প্রস্তাব দেয় সে গ্রামে খানদের ক্যাম্প স্থাপন করার গ্রামের নিরীহ মানুষ খানসেনা তাদের দোসরদের কাছে মাগরিবের নামাজ আদায়ের আকুতি করলে তারা নামাজের জন্য সবাইকে সারিবদ্ধ হতে বলে এসময় সকলে নামাজে দাঁড়িয়ে মাত্র দুরাকাত নামাজ শেষ করার সাথে সাথে পাক হানাদার বাহিনী এবং তাদের দোসররা সবাইকে সারিবদ্ধ করে ব্রাশ ফায়ার করে এতে ৩৯ জন নিরীহ মানুষের জীবন প্রদীপ চিরতরে নিভে যায় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নাম ধরে ডাকতে ডাকতে ছটফট করতে করতে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে তারা টানা দিন পর অর্থাৎ ১৬ ডিসেম্বর বিকালে পচন ধরা লাশগুলিকে পাশে একটি গণ কবরে একই সঙ্গে ৩৩ জনকে সমাহিত করা হয় তাঁরা হলেনঃ সাহের উদ্দিন, খমির  উদ্দিন, ওহাব আলী, মছলে উদ্দিন, সফিউদ্দিন, আব্দুস সাত্তার, আব্দুর রহমান, ভুতা মোহাম্মদ, কালু মোহাম্মদ, জাহের উদ্দিন, আখি মোহাম্মদ, টাকরু, তসির উদ্দিন, নুরু মোহাম্মদ, সামির উদ্দিন,আব্দুল লতিফ, ছপি উদ্দিন, রবিতুল্যাহ, আকবর আলী, আমিন আলী, মুন্সি . জব্বার, ইসহাক আলী, মহসীন আলী (চেন্দেরু), জয়নাল আবেদীন, বারেক তুল্যা, রহিম উদ্দিন, গোলাম মোস্তফা (গলো), . করিম আলী, সোহরাব আলী, মোস্তাফা (মনু), ওমর আলী, মুজিতুল্লাহ, আছির উদ্দিন বাকি জন ফজলু, খেতু বোড়াল, খলিল উদ্দিন, জাহের মোহাম্মদ, রহিমুদ্দিন, . মালেকের লাশ পারিবারিকভাবে দাফন করা হয় দিবসটিকে ঘিরে আজ ১৩ ডিসেম্বর বুধবার সকালে স্মৃতিস্তম্ভ চত্বরে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন, দোয়া খায়ের আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে