জে এম সেন ভবনকে জাদুঘর হিসেবে প্রতিষ্ঠার জোর দাবি

11

চট্টগ্রাম থেকে সংবাদদাতা।। ২০ জানুয়ারি।। বাংলাদেশ হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. রানা দাশগুপ্ত ঐতিহাসিক জে এম সেন ভবনকে সংরক্ষণ করে, স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর হিসেবে প্রতিষ্ঠার জন্যে সরকার ও প্রশাসনের কাছে জোর দাবি জানিয়ে বলেছেন, এ লক্ষ্যে চট্টগ্রামের নাগরিক সমাজের আন্দোলন অব্যাহত থাকবে, প্রয়োজনে আমরণ অনশনের কর্মসূচি নেয়া ছাড়া বিকল্প থাকবে না।

বাংলাদেশ হিন্দু ফাউ-েশন মিলনায়তনে গতকাল সন্ধ্যায় প্রকৌশলী পরিমল কান্তি চৌধুরী’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত চট্টগ্রামের ধর্মীয়-জাতিগত সংখ্যালঘু সংগঠনসমূহের মতবিনিময় সভায় এ্যাড. দাশগুপ্ত বক্তব্য রাখছিলেন। তিনি বলেন, বীরচট্টলার সর্বস্তরের জনগণকে সাথে নিয়ে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে স্বাধীনতা, মুক্তিযুদ্ধ ও বিপ্লবীদের স্মৃতি রক্ষার্থে জাদুঘর প্রতিষ্ঠা সমকালীন সময়ে গণমানুষের প্রাণের দাবি।

সভায় আগামি ২৭ মার্চ অনুষ্ঠেয় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের পূর্বাপর বিশেষ করে সংখ্যালঘু এলাকাসমূহে ভোটদানের পরিবেশ সুনিশ্চিত করার জন্যে নির্বাচন কমিশন ও সরকারের প্রতি জোর দাবি জানানো হয়।

চট্টগ্রাম মহানগর যুব ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট রুবেল পালের সঞ্চালনায় আরো বক্তব্য রাখেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য ইন্দু নন্দন দত্ত, চট্টগ্রাম দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক তাপস হোড়, কেন্দ্রীয় কমিটির শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক ও চট্টগ্রাম জেলা পূজা কমিটির সভাপতি শ্যামল কুমার পালিত, অধ্যাপক নারায়ণ চৌধুরী, এ্যাড. চন্দন বিশ^াস, মহানগর সহ-সভাপতি দীপংকর চৌধুরী কাজল, মহানগর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সুমন কান্তি দে, সাংগঠনিক সম্পাদক সাগর মিত্র, সহ-সম্পাদক বিশ^জিৎ পালিত, বিকাশ মজুমদার, সুভাষ দাশ, কল্লোল সেন, সুমন দেবনাথ, সুগ্রীব মজুমদার দোলন, টিংকু চক্রবর্তী, যুব সভাপতি বিজয় কৃষ্ণ দাশ, সিজার বড়–য়া, অজিত কুমার শীল, ডা. অঞ্জন কুমার দাশ, এ্যাড. যীশু কৃষ্ণ রক্ষিত, আশুতোষ দত্ত, অধ্যক্ষ সুকুমার দত্ত, স্বরূপ পাল, চন্দন কুমার চৌধুরী, গোপাল দাশ টিটু, প্রদীপ কুমার দাশ, উত্তম বড়–য়া, অপু বৈদ্য, অজিত কুমার শীল, এ্যাড. লিটন কান্তি গুহ, বীণা মজুমদার, ডা. তপন চন্দ্র দাশ, ডা. লিটন বিশ^াস, অমল শিকদার, কাজল কান্তি লোধ, মুনমুন দত্ত মুন্না, জিৎকর বাবু, তন্ময় সেনগুপ্ত, ডা. দেবাশীষ মজুমদার, কল্লোল চৌধুরী, সুভাষ চৌধুরী, সাংবাদিক সুজিত বিশ^াস, অশোক চক্রবর্তী, সুমন চন্দ্র নাথ প্রমুখ।