কোরআনে অবশ্যই ধর্মনিরপেক্ষতার কথা বলা আছে : প্রধানমন্ত্রী

47

ডেস্ক রিপোর্ট।। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, পবিত্র কোরআন শরিফে অবশ্যই ধর্মনিরপেক্ষতার কথা বলা রয়েছে। শনিবার (৩ জুলাই) জাতীয় সংসদের বাজেট অধিবেশনের সমাপনী বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী  এ কথা জানান। এ সশয় স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন।

এর আগে সংসদের এই অধিবেশনেই বিএনপির সংসদ সদস্য হারুনুর রশিদ বাংলাদেশের সংবিধানে ধর্মনিরপেক্ষতা থাকার সমালোচনা করেছিলেন। কোরআনে ধর্মনিরপেক্ষতার কথা নেই বলে তিনি দাবি করেছিলেন। সংবিধানে ধর্মনিরপেক্ষতা রাখা সাংষর্ষিক বলেও তিনি মন্তব্য করেছিলেন। খবর বাংলা ট্রিবিউনের।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিএনপি নেতা হারুনের বক্তব্যের প্রসঙ্গটি তুলে ধরে বলেন, মাননীয় সংসদ সদস্য বলেছেন, কোরআন শরিফে নাকি ধর্মনিরপেক্ষতার কথা বলা নেই। আমি বলবো অবশ্যই আছে। আমাদের নবী করিম (সা.) বলেছেন, অন্য ধর্মের প্রতি সহনশীল হতে। তিনি এই শিক্ষা দিয়েছেন। আমাদের কোরআন শরিফে বলা হয়েছে, ইসলাম শান্তির ধর্ম। ইসলাম সব ধর্মের মর্যাদা দেয়। কোরআন শরিফে আছে ‘লাকুম দিনুকুম ওয়ালিয়াদিন’ অর্থাৎ যার যার ধর্ম সে সে পালন করবে। যার যার মতামত সে সে প্রকাশ করবেন। এটা প্রকৃতপক্ষে ধর্মনিরপেক্ষতাই আসে। যতই তিনি (এমপি হারুনুর রশিদ) অস্বীকার করুন, যেভাবেই তিনি ব্যাখ্যা দেন। এটা হচ্ছে বাস্তবতা। যুগ যুগ ধরে এটা চলছে। হ্যাঁ অবশ্যই নিজের ধর্ম পালনে সব সময় গুরুত্ব দিতে হবে। পাশাপাশি অন্য ধর্মের প্রতি সহনশীল থাকতে হবে। এটা আমাদের শিক্ষা। এটা নবী করিম (সা.) সব সময় বলে গেছেন। কাজেই এ ধরনের কথা সংসদে না বলাটাই ভালো।

টিকা আসা শুরু হয়েছে, আর সমস্যা নেই

টিকা আসা শুরু হয়েছে আর কোনও সমস্যা হবে না বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, আরও টিকা আসবে এবং দেশের ৮০ ভাগ মানুষকে বিনামূল্যে টিকা দেওয়া হবে। শেখ হাসিনা বলেন, আমরা ভারত থেকে করোনা টিকা কেনার ব্যবস্থা করেছিলাম। কিন্তু সেখানে করোনা বেড়ে গেলে তারা রফতানি বন্ধ করে দেয়। এতে কিছু দিন আমাদের সমস্যা হয়েছিল। এখন আর সমস্যা নেই। চীন ও যুক্তরাষ্ট্র থেকে টিকা এসে গেছে। আরও টিকা আসবে।

প্রধানমন্ত্রী শুক্রবার রাতে এবং শনিবার সকালে মর্ডানা ও সিনোফার্মের টিকা আসার কথা উল্লেখ করে বলেন, যেখানে টিকা পাওয়া যাচ্ছে, সেখানে আমরা যোগাযোগ করছি। আরও কিনে আনবো। চীন, রাশিয়া, জাপান, যুক্তরাষ্ট্র-সব জায়গায় আমরা যোগাযোগ রেখেছি। আগেই বলেছি, আমরা ৮০ ভাগ মানুষকে টিকার আওতায় আনবো। বিনামূল্যে টিকা দেওয়া হচ্ছে। আমরা অনেক টাকা দিয়ে টিকা কিনে আসছি। কিন্তু জনগণের স্বার্থে বিনামূল্যে দিচ্ছি। আমরা সব কর্মসূচিতে অগ্রাধিকার দিই গ্রামের মানুষ, খেটে খাওয়া মানুষকে।