কাহারোলে ১১ বছরের শিশু কন্যাকে ধর্ষণ

5

রতন সিং, দিনাজপুর থেকে।। ০৫ জুলাই।। দিনাজপুর কাহারোল উপজেলার পল্লীতে ৪র্থ শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের পর হত্যার ঘটনায় ময়নাতদন্ত রিপোর্টে ধর্ষণের আলামত পাওয়া গেছে বলে ময়নাতদন্তকারী চিকিৎসক জানিয়েছেন।

আজ সোমবার দুপুর ২টায় দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের প্রভাষক ডাঃ শাহরিমা তরফদার মোবাইল ফোনে জানান, গত রোববার উদ্ধারকৃত ১১ বছরের মৃত শিশু জাকিয়া আক্তার এর ময়নাতদন্ত বিকেলেই সম্পন্ন করা হয়েছে। তিনি জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে ভিকটিমকে দুস্কৃতিকারীরা ধর্ষণ করে পরবর্তীতে হত্যা করেছে।  সবধরনের রিপোর্ট একত্রিত হলেই পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদনে বিস্তারিত তথ্য আসবে বলে তিনি প্রকাশ করেন।

এদিকে কাহারোল থানার অফিসার্স ইনচার্জ ফেরদৌস আহম্মেদ এর সাথে মোবাইল ফোনে কথা বলা হলে তিনি জানান, এই চাঞ্চল্যকর হত্যা ঘটনায় নিহত শিশুর পিতা জাহাঙ্গীর আলম বাদী হয়ে গত রোববার দুপুরে কাহারোল থানায় অজ্ঞাত নামা দুস্কৃতিদের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলা দায়েরের পর ঘটনাস্থল কাহারোল থানার তবলা বড়বন এলাকা থেকে রোববার দুপুর ১২টায় মাটির নিচ থেকে লাশ উদ্ধার করা হয়। গতকাল রোববার বিকেলেই লাশ ময়নাতদন্ত সম্পন্ন করা হয়েছে। আজ সোমবার সকাল ১০টায় লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। মামলা দায়েরের পর এ পর্যন্ত ২২ জনকে থানায় ডেকে এই ঘটনার বিষয় জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। এখন ৭ জনকে পুলিশী হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।