করোনায় মৃত্যু ও আক্রান্ত বাড়ছে, সচেতনতা সেভাবে দেখা যাচ্ছে না

2

।। নিজস্ব বার্তা পরিবেশক।। করোনাভাইরাসে দেশে মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ছে, বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যাও। তারপরেও মানুষের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আশানুরূপ কোনো সচেতনতা দেখা যাচ্ছে না। সোমবার বলা হয়েছিল, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে মানুষকে মাস্ক পরার জন্য বাধ্য করতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে জরিমানা বাড়ানোসহ আরও কঠোর অবস্থানে যাচ্ছে সরকার। মানুষকে মাস্ক পরতে বাধ্য করতে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গণমাধ্যমে এই সংবাদ প্রচার বা প্রকাশিত হওয়ার পরও মঙ্গলবার সেরকম সচেতনতার দেখা মেলেনি। মাস্ক পরার যে সরকারি নির্দেশনা রয়েছে তাও মানছেন না অনেকে।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরো ৩২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এতে মৃত্যু বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬ হাজার ৪৪৮ জন। এছাড়া একই দিনে আরো ২ হাজার ২৩০ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। এতে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা পৌঁছেছে ৪ লাখ ৫১ হাজার ৯৯০ জন। মঙ্গলবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানায়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত এক দিনে আরো ২ হাজার ২৬৬ জন রোগী সুস্থ হয়ে উঠেছেন। এতে সুস্থ রোগীর মোট সংখ্যা বেড়ে ৩ লাখ ৬৬ হাজার ৮৭৭ জন হয়েছে।  গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ১১৭টি ল্যাবে ১৫ হাজার ১৮টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এ পর্যন্ত পরীক্ষা হয়েছে ২৬ লাখ ৮০ হাজার ১৪৯টি নমুনা।

জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তালিকা অনুযায়ী করোনা রোগীর শনাক্তে বাংলাদেশ এখন বিশ্বে ২৫তম স্থানে রয়েছে। আর মৃতের সংখ্যায় রয়েছে ৩২তম অবস্থানে।

এদিকে ঢাকার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, সড়কে চলাচল করা অনেকের মুখেই মাস্ক নেই। ব্যবসায়ীরাও মাস্ক ছাড়া কেনাবেচা করে যাচ্ছেন। গণপরিবহনেও যাত্রীদের মাস্ক ছাড়া যাতায়াত করতে দেখা গেছে। চালক-হেলাররাও মাস্ক ব্যবহার করছেন না। তার মাঝে তো সামাজিক দূরত্বের বালাই নেই।

দুপুরে কাওরান বাজারে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তাজওয়ার আকরাম সাকাপি ইবনে সাজ্জাদের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হয়। এ সময় মাস্ক না পরা ক্রেতা, বিক্রেতা ও পথচারীদের বেশ কয়েকজনকে ১শ’ থেকে দু’শ টাকা করে জরিমানা করা হয়। যাদের মাস্ক নেই তাদের মধ্যে মাস্ক বিতরণ ও করোনা সম্পর্কে সচেতন করা হয়। এভাবে দেশের বিভিন্ন জেলায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে জরিমানা করা হয়।